সুন্দরগঞ্জে শিক্ষার মানোন্নয়নে শীর্ষক আলোচনা

সুন্দরগঞ্জ(গাইবান্ধা):  গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার বামনডাঙ্গার  প্রাণকেন্দ্রে  অত্যন্ত আনন্দঘন ও নিরিবিলি পরিবেশে অবস্থিত  ঐতিহ্যবাহী বামনডাঙ্গা শিশুনিকেতন এন্ড মডেল হাই স্কুলের  শিক্ষার মানোন্নয়ন শীর্ষক আলোচনা  ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

মঙ্গলবার (১২ফেব্রুয়ারী) সকাল ১১ঘটিকায় বিদ্যালয়ের নিজস্ব ক্যাম্পাসে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।উক্ত আলোচনা ও মতবিনিময় সভায় বামনডাঙ্গা শিশু নিকেতন এন্ড মডেল হাই স্কুলের প্রশাসনিক পরিচালক মোসতাক আযম সরকারের সভাপতিত্বে প্রধান আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন  বামনডাঙ্গা শিশু নিকেতন এন্ড মডেল হাই স্কুলের সত্ত্বাধিকারী ও প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান জনাব,আবুল কাশেম।

এসময় উক্ত আলোচনা ও মতবিনিময় সভায় আরো   উপস্থিত ছিলেন বামনডাঙ্গা শিশু নিকেতন এন্ড মডেল হাই স্কুলের পরিচালক একাডেমীক মাধ্যমিক শাখা,জনাব,ফারুকুল ইসলাম,বামনডাঙ্গা শিশু নিকেতন এন্ড হাই স্কুলের পরিচালক প্রাথমিক শাখা,রেজাউল করিম,বামনডাঙ্গা শিশু নিকেতন এন্ড মডেল হাই স্কুলের সহকারী পরিচালক মাধ্যমিক শাখা,জনাব,জাহিদ হাসান,বামডাঙ্গা শিশু নিকেতন এন্ড মডেল হাই স্কুলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক, রওনক জেবিন দয়ীতা,বামনডাঙ্গা শিশু নিকেতন এন্ড মডেল হাই স্কুলের সহকারী পরিচালক, জনাব,নুরে আলম সিদ্দিকী প্রমুখ।
সভায় অএ বিদ্যালয়ের অভিভাবকগন উপস্থিত ছিলেন।

সভায় বক্তাগন বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মেধাবী করার পাশাপাশি একজন সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তোলার কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করতে বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক ও শিক্ষিকাদের পরামর্শ দেন।

বামনডাঙ্গা শিশু নিকেতন এন্ড মডেল হাই স্কুলের সত্ত্বাধিকারী ও প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান জনাব,আবুল কাশেম তার বক্তব্যে বলেন,
স্কুলে শিক্ষা-বান্ধব পরিবেশ বজায় রাখা এবং শিক্ষার্থীদের পড়ালেখার গুণগতমান উন্নয়নের জন্য তাদের অভিভাবকদের সঙ্গে নিয়মিত মতবিনিময় সভার আয়োজন করা একটি গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার। সেই সাথে জাতিকে শিক্ষিত করে তুলতে শিক্ষকদের পাশাপাশি অভিভাবকদের ভুমিকাও খুবই গুরুত্বপূর্ণ এবং ইভটিজিং,মাদকাসক্তি রোধকল্পে শিক্ষার্থীদের মনোযোগী হতে হবে। এক্ষেএে শিক্ষক, ছাএ ও অভিভাবকদের সুন্দর সমন্বয় প্রত্যাশা করে তিনি বলেন,ভবিষ্যত দেশ গড়ার লক্ষ্যে প্রজন্মকে সঠিক শিক্ষায় শিক্ষিত করতে হবে।

পরিশেষে তিনি একজন শিক্ষার্থী সকালে ঘুম থেকে উঠে রাতে ঘুমানোর আগ পর্যন্ত কি করে কোথায় যায় কার সাথে যায় সেদিকটি দেখতে প্রতিটি অভিভাবকের প্রতি আহ্বান জানান।

এমএমএ/