ভবন নির্মাণে দুর্ভোগ কমাতে গৃহায়ণ ও গণপূত মন্ত্রণালয়ের ২ সিদ্ধান্ত

নাগরিক বার্তা ডেস্ক: ভবন নির্মাণের ক্ষেত্রে দালালদের হয়রানি ও দুর্ভোগ নিরসনের লক্ষে নতুন দুটি সিদ্ধান্ত নিয়েছে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়।

বুধবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) সচিবালয়ে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক)ও চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (চউক) সঙ্গে বিডাকের সমন্নয় সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

সিদ্ধান্তের বিষয়ে গণপূর্ত মন্ত্রী বলেন, ভবন নির্মাণে গতিশীলতা আনতে দুটি সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। আগে ভবন নির্মাণে ১২টি ধাপ পার করতে হতো। কিন্তু এখন সেটি মাত্র ৪ ধাপে সম্পন্ন করা হবে।এসব ধাপ হল-

১. ভূমি ব্যবহারের ছাড়পত্র গ্রহণ।

২. সিভিল এভিয়েশনের অনুমোদন (শুধুমাত্র বিমান চলাচলের রুট এলাকা)।

৩. কেপিআই-এর অনুমোদন।

৪. ১০ তলার ওপরে ভবন হলে ফায়ার সার্ভিসের অনুমোদন।

অপর সিদ্ধান্তটি হল- আগে এসব প্রক্রিয়া সম্পন্ন হতে সময় লাগত ১৫০ দিন। এখন এ সময় কমিয়ে আনা হয়ে হয়েছে মাত্র ৫৩ দিনে।

এসব সিদ্ধান্ত আজ থেকেই কার্যকর করা হচ্ছে বলে জানান মন্ত্রী। পাশাপাশি ১ মে থেকে ভবন নির্মাণের প্রয়োজনীয় সব সুবিধা অনলাইনের মাধ্যমে গ্রাহকরা নিতে পারবেন। প্রত্যেক ভবন নির্মাণের ক্ষেত্রে ইন্স্যুরেন্স বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। গ্রাহকরা যাতে কোনো ধরনের হয়রানির শিকার না হয় সেদিকে লক্ষ্য রেখেই এসব সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

তা.আ/