বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড তৃতীয় টেস্ট বাতিল

বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ডের মধ্যে ক্রাইস্টচার্চের হাগলি ওভাল মাঠে শনিবার তৃতীয় টেস্ট হওয়ার কথা ছিলো। কিন্তু নিউজিল্যান্ডের একাধিক জায়গায় সন্ত্রাসী হামলার পরিপ্রেক্ষিতে তা বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে।

শুক্রবার (১৫ মার্চ) জুমা নামাজের আগ মুহূর্তে ক্রাইস্টচার্চসহ নিউজিল্যান্ডের দু’টি মসজিদে সন্ত্রাসী হামলায় হতাহতের পর দুই বোর্ডের মিলিত সিদ্ধান্তে হাগলি ওভাল টেস্ট বাতিল ঘোষণা করা হয়।

নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটের পক্ষ থেকে এক টুইট বার্তায় বলা হয়, ‘ক্রাইস্টচার্চের ক্ষতিগ্রস্থদের পরিবার ও বন্ধুদের জন্য রয়েছে আমাদের মন থেকে সমবেদনা। এই অবস্থায় বাংলাদেশ ও নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড যৌথভাবে সিদ্ধান্ত নিয়েছে হাগলি ওভাল টেস্ট বাতিল করা হবে। আবারও বলি দুই দলের খেলোয়াড় ও স্টাফরা নিরাপদে আছেন।’

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) ওয়েবসাইট থেকে জানানো হয়েছে, ‘শহরের মসজিদে সন্ত্রাসী হামলার পর বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সদস্যরা যারা নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে তারা সবাই নিরাপদে হোটেলে পৌঁছেছেন। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডে পক্ষ থেকে তাৎক্ষনিক দলের সদস্য ও টিম ম্যানেজমেন্টের সঙ্গে কথা বলা হয়েছে।’

প্রধান সড়কে টিম বাস রেখে পার্কের ভেতর থেকে হেটে আল নূর মসজিদের দিকে যাচ্ছিলেন বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা। শুক্রবারের জুমার নামাজ আদায়ের জন্য। কিন্তু মসজিদের কাছাকাছি যেতেই গোলাগুলির শব্দ। এক নারী সতর্কও করে দিলেন সেদিকে না যেতে। অনেকটা দৌড়ে ক্রিকেটাররা ফিরলেন টিম বাসে।

শুক্রবারের অনুশীলন শেষ করেই জুমার নামাজ আদায়ের জন্য ক্রাইস্টচার্চের মসজিদ আল নূরে যায় ক্রিকেটাররা। তবে জানা গেছে ক্রিকেটাররা সবাই নিরাপদে ও সুস্থভাবে টিম হোটেলে পৌঁছেছেন।

জানা গেছে, ক্রিকেটারা চাইছেন যত দ্রুত সম্ভব দেশে ফিরতে। জনপ্রিয় ক্রিকেট ওয়েবসাইট ক্রিকইনফোর বাংলাদেশ প্রতিনিধি মোহাম্মদ ইসাম নিশ্চিত করেছেন টিম হোটেলে নিরাপদেই আছেন তামিম-মুশফিকরা। তবে তারা কেউই বেশিক্ষণ নিউজিল্যান্ডে অবস্থান করতে চাচ্ছেন না।

তিনি নিউজিল্যান্ড হেরাল্ডকে বলেন, ‘আমার মনে হয় না তারা এখন ক্রিকেট খেলার মতো অবস্থায় আছে। তারা যত দ্রুত সম্ভব দেশে ফিরতে চায়। আমি আমার অভিজ্ঞতা থেকে বলছি, আমি যা শুনছি তা থেকেই বলছি।’

নাবা/সেন্ট্রাল ডেস্ক/কেএইচ/