ঢাবি ক্যাম্পাসে ছুরিকাঘাতে কিশোর নিহত

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শহিদুল্লাহ হলের সামনের রাস্তায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ছুরিকাঘাতে আরিফ হোসেন (১৫) নামের এক কিশোর নিহত হয়েছে।

শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ১০টার দিকে সে মারা যায়। বিষয়টি আরো পরে জানাজানি হয়।

নিহত আরিফ কিশোরগঞ্জের ভৈরব উপজেলার হেলাল মিয়ার ছেলে। সে পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডে থাকত। একটি জুতার কারখানায় কাজ করত আরিফ।

আরিফের বড় ভাই আওলাদ হোসেন গণমাধ্যমকে জানান, গতকাল বিকেলে হাইকোর্ট মাঠে ক্রিকেট খেলতে গিয়েছিল আরিফ ও তার কয়েকজন বন্ধু। সেখান থেকে শহিদুল্লাহ হলের সামনের রাস্তা দিয়ে ফিরছিল তারা। এ সময় বিপরীত দিক থেকে আসা ১০ থেকে ১৩ জন যুবকের মধ্যে একজন আরিফের পায়ে লাথি দেয়। পরে আরিফ প্রতিবাদ করলে প্রথমে তাকে মারধর করে ওই যুবকরা। পরে আরিফের বুকের ডান পাশে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায় তারা।

ময়নাতদন্তের জন্য আরিফের লাশ মর্গে রাখা হয়েছে বলে জানান ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ক্যাম্পের কর্মকর্তা উপপরিদর্শক বাচ্চু মিয়া।